শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৬ অপরাহ্ন

জসীম উদ্দীন

প্র : জসীম উদ্দীনের জন্ম তারিখ কত?
উ : ১লা জানুয়ারি, ১৯০৩।
প্র : তিনি কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?
উ : মাতুলালয়, তাম্বুলখানা গ্রাম, ফরিদপুর।
প্র : তাঁর মাতা-পিতার নাম কী?
উ : আমেনা খাতুন; মৌলবি আনসার উদ্দীন আহমদ।
প্র : তাঁর পৈতৃক নিবাস কোথায়?
উ : গোবিন্দপুর গ্রাম, ফরিদপুর।
প্র : জসীম উদ্দীনকে কী বলা হয়?
উ : ১৯৩১ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে এম.এ ডিগ্রি লাভ। পূর্ববঙ্গ গীতিকায় যে বর্ণনাভঙ্গি এবং ভাষারীতি; জসীম উদ্দীন তাকে অবলম্বন করেছেন। গ্রামীণ জীবনের মাধুর্য ও কারুণ্য, বৈচিত্র্যহীন ক্লান্তিকরতা এবং মানুষের অসহায়তা এই কাব্যের উপকরণ। আধুনিক বাংলা কাব্যের ইতিহাসে এই কাব্য এক বিশেষ স্বাতন্ত্র্য নিয়ে লেখা হয়েছিল।
প্র : ‘সুচয়নী’ কোন ধরনের গ্রন্থ?
উ : রবীন্দ্রনাথের যেমন ‘সঞ্চয়িতা’, নজরুলের ‘সঞ্চিতা’ জসীম উদ্দীনের তেমনি ‘সুচয়নী’। এটি কবির নির্বাচিত কবিতার সংকলন গ্রন্থ।
প্র : তাঁর রচিত জনপ্রিয় খন্ড কবিতার সংকলনগুলো কী কী?
উ : রাখালী (১৯২৭), বালুচর (১৯৩০), ধানখেত (১৯৩৩), রূপবতী (১৯৪৬), মাটির কান্না (১৯৫৮) ও সুচয়নী (১৯৬১)।
প্র : তাঁর রচিত সুখপাঠ্য গদ্যগ্রন্থগুলো কী?
উ : যাঁদের দেখেছি (স্মৃতিকথা ১৯৫২), ঠাকুর বাড়ির আঙিনায় (স্মৃতিকথা ১৩৬৮), জীবন কথা (আত্মজীবনী ১৯৬৪) ইত্যাদি।
প্র : তাঁর রচিত ভ্রমণকাহিনিগুলো কী?
উ : চলে মুসাফির (১৯৫২), হলদে পরীর দেশ (১৯৬৭), যে দেশে মানুষ বড় (১৯৬৮) প্রভৃতি।
প্র : তাঁর রচিত শিশুতোষ গ্রন্থগুলো কী?
উ : হাসু (১৯৩৮), এক পয়সার বাঁশী (১৩৫৬), ডালিমকুমার (১৯৫১)।
প্র : তাঁর রচিত নাটকগুলো কী কী?
উ : পদ্মাপাড়া (১৯৫০), বেদের মেয়ে (১৯৫১), মধুমালা (১৯৫১), পল্লীবধূ (১৯৫৬), গ্রামের মায়া ইত্যাদি।
প্র : ‘নক্সীকাঁথার মাঠ’-এর পরিচয় দাও।
উ : ‘নক্সীকাঁথার মাঠ’ (১৯২৯) গ্রন্থেও প্রথম অংশে আছে চাষীর ছেলে রূপা ও পামের গ্রামের মেয়ে সাজুর প্রথম পরিচয় থেকে তাদেও অনুরাগের বিকাশ ও বিবাহ এবং কয়েক মাসের সুখময় জীবনের কথা দ্বিতীয় অংশের বিষয় তাদেও বিচ্ছেদ। পূর্ববঙ্গ গীতিকায় যে বর্ণনাভঙ্গি এবং ভাষারীতি; জসীম উদ্দীন তাকে অবলম্বন করেছেন। গ্রামীণ জীবনের মাধুর্য ও কারুণ্য, বৈচিত্র্যহীন ক্লান্তিকরতা এবং মানুষের অসহায়তা এই কাব্যেও উপকরণ। আধুনিক বাংলা কাব্যেও ইতিহাসে এই কাব্য এক বিশেষ স্বাতন্ত্র্য নিয়ে লেখা হয়েছিল।
প্র : ‘সুচয়নী’ কোন ধরনের গ্রন্থ ?
উ : রবীন্দ্রনাথের যেমন ‘সঞ্চয়িতা’, নজরুলের ‘সঞ্চিতা’ জসীম উদ্দীনের তেমনি ‘সুচয়নী’। এটি কবির নির্বাচিত কবিতার সংকলন গ্রন্থ।
প্র : তাঁর রচিত জনপ্রিয় খন্ড কবিতার সংকলনগুলো কী কী?
উ : রাখালী (১৯২৭), বালুচর (১৯৩০), ধানখেত (১৯৩৩), রূপবতী (১৯৪৬), মাটির কান্না (১৯৫৮) ও সুচয়নী (১৯৬১)।
প্র : তাঁর রচিত সুখপাঠ্য গদ্যগ্রন্থগুলো কী?
উ : যাঁদেও দেখেছি (স্মৃতিকথা ১৯৫২), ঠাকুর বাড়ির আঙিনায় (স্মৃতিকথা ১৩৬৮), জীবন কথা (আত্মজীবনী ১৯৬৪) ইত্যাদি।
প্র : তাঁর রচিত ভ্রমণকাহিনিগুলো কী?
উ : চলে মুসাফির (১৯৫২), হলদে পরীর দেশ (১৯৬৭), যে দেশে মানুষ বড় (১৯৬৮) প্রভৃতি।
প্র : তাঁর রচিত শিশুতোষ গ্রন্থগুলো কী?
উ : হাসু (১৯৩৮), এক পয়সার বাঁশী (১৩৫৬), ডালিমকুমার (১৯৫১), পল্লীবধূ (১৯৫৬), ডালিমকুমার (১৯৫১)।
প্র : তাঁর রচিত নাটকুগলো কী কী?
উ : পদ্মাপাড় (১৯৫০), বেদেও মেয়ে (১৯৫১), মধুমালা (১৯৫১), পল্লীবধূ (১৯৫৬), গ্রামের মায়া ইত্যাদি।
প্র : তাঁর রচিত একমাত্র উপন্যাসের নাম কী?
উ : বোবা কাহিনী (১৯৬৪)।
প্র : ‘বোবা কাহিনী’ উপন্যাসের পরিচয় দাও।
উ : জসীম উদ্দীন রচিত ‘বোবা কাহিনী’ (১৯৬৪) উপন্যাসে মহাজনী শোষণের কারণে গ্রামের প্রান্তিক চাষী আজহারের ভূমিহীন হওয়া, শহরের সুবিধাবাদী উকিল ও ভন্ড ধার্মিক কর্তৃক মেধাবী বছির নিগ্রহ ইত্যাদি বর্ণিত হয়েছে। উপন্যাসের কয়েকটি চরিত্র : বছির, আজহার, আরজান, রহিমুদ্দিন্ উপন্যাসে কোন জটিলতা নেই। নিছক সরল ও সাদামাটা একটি গল্প আছে উপন্যাসটিতে।
প্র : তাঁর রচিত গানের সংকলনের নাম কী?
উ : রঙ্গিলা নায়ের মাঝি (১৯৩৫), গাঙ্গেও পাড় (১৯৬৪), জারিগান (১৯৬৮) ইত্যাদি।
প্র : নকসী কাঁথার মাঠ (১৯২৯) কাব্যটি কী নামে ইংরেজিতে অনূদিত ও প্রকাশিত হয়?
উ : ‘Field of the Embroidery Quilt’.
প্র : কে অনুবাদ করেন?
উ : E.M. Millford. ই. এম. মিলফোর্ড।
প্র : তিনি কোন আন্দোলনের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক ছিলেন?
উ : বাঙালির জাতিসত্তা বিকাশের আন্দোলনের।
প্র : তিনি কোন সমাজব্যবস্থার সমর্থক ছিলেন?
উ : সমাজতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থার।
প্র : তিনি কী কী সম্মানসূচক ডিগ্রিলাভ করেন?
উ : বিশ্বভারতী বিম্ববিদ্যালয় কর্তৃক সম্মানসূচক ডি-লিট ডিগ্রি ও সাহিত্য সাধনার স্বীকৃতি স্বরূপ একুশে পদক (১৯৭৬)।


পোস্টটি শেয়ার করুন...

© BengaliGrammar.Com
Maintenance by BengaliGrammar.Com