শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের সাহিত্যিকদের পরিচিতি : নাটক

অনন্ত হীরা : লোকনায়ক (২০০৫), বিচার (২০০১), ক্ষমাহীন ক্ষমা (২০০০)
অনিমেশ সাহা লিটু : কালাকাল, পথনাটক: দুঃসহ স্মৃতি (২০০৩), বোধোদয় (২০০৪), ফিরে আসা (২০০৫)
অন্নদামোহন বাগচী : ঝড় (১৯৫৭), মুক্তি (১৯৬০), শেষপ্রহর (১৯৬০), মসনদ (১৯৬১), সূর্যমুখী (১৯৬১), রিক্তের বেদন (নাট্যরূপ) (১৯৬২), কাদামাটির দূর্গ (১৯৬৪), মেঘের পারের মেঘ (১৯৬৪), কেদার মাস্টার (১৯৬৭), বন্ধন (১৯৬৮), দুইপক্ষ (১৯৬৮)
অভিজিৎ সেনগুপ্ত : ক্রান্তিকাল (২০০১), অর্ফিয়ুস (২০০১), বেলা শেষের গল্প (২০০৪)
অভীক ওসমান : তিরোহিত সুন্দর আমার (১৯৭৫), গন্ধরাজ (১৯৮৫), শংখ উপাখ্যান (১৯৯৩), রাত ফেরার (১৯৭৭) পথনাটক: অবশেষে জেনারেল (১৯৮৬)
অমর সাহা : মরা মানুষের রং (১৯৮০), পিপাসার মৃত্যু (১৯৮১), সত্য যেখানে মরে গেল (১৯৮১), অথবন্ধু সমাচার (১৯৮১), মৃত্যু মানে পরাভব (১৯৮১), নীলখাম (১৯৮১), পাঞ্চ (১৯৮০), স্বাধীনতার ঝড় (১৯৮১), ভাগীরথী (১৯৯৪), পর্ণো কড়চা (১৯৯৪), পথনাটক: চেতনার উন্মেষ (১৯৮০), চশমা (১৯৯৩)
অলোক বসু : ঘরামি (২০০১), তেভাগার পালা (১৯৯০), শুধু একাকী (১৯৯৯)
পথনাটক : বান্দরের কিস্সা (১৯৯৪), মাদার (১৯৯৪), অ¤দহন (২০০১)
আকবরউদ্দীন : সিন্ধু বিজয় (১৯৩০), নাদির শাহ (১৯৫৩), বন্দীর মুক্তি (১৩৩৪); আজান (১৯৪৬) ও অভিশাপ (১৯৪৭), মুজাহিদ (১৩৭০), সুলতান মাহমুদ (১৩৩৭), ঝি ফেডারেশন (১৩৫৩)
আজহার হাবলু : বিতাড়িত সুন্দর (১৯৯৬), বেদনার নোঙর (১৯৯৭), মজার ইস্কুল (২০০২), বর্ণমালার চোখে জল (২০০১), আলারাখা (১৯৯৯)
আজাদ আবুল কালাম : সার্কাস সার্কাস (১৯৯৮ প্র. অ.)
আজিজ মেহের : টিপু সুলতান (১৯৬২), তারাবাঈ (১৯৬৩), ঝড়ের পাখি (১৯৬৫), বাজিছে দামামা নিরক্ষবৃত্তে (১৯৬৭), ম্যাকসিম গোর্কির মা (১৯৮৬)
আজিজুস সামাদ : কীর্তিনাশা (১৯৯২), কালান্তর (১৯৯৪), প্রহেলিকা (১৯৯৫), বঙ্গরঙ্গ (১৯৯৬), হিং টিং ছট (১৯৯৭), বৃত্ত (১৯৯৮), বিবাহ সংক্রান্ত জটিলতা (২০০০)
পথনাটক : কল্পতরু (১৯৯৪), কাঁটা (১৯৯৬)
আতাউর রহমান : ভেঁপুতে বেহাগ (১৯৭৪), দ্বাররুদ্ধ
আনন জামান : শিখ-ী কথা (২০০২), পথনাটক: প্রকৃতি বিলয় (২০০৪)
আ. ন. ম. বজলুর রশীদ : উত্তর-ফাল্গুনী (১৯৬৪), রূপান্তর (১৯৭০), ঝড়ের পাখি (১৯৫৯), সংযুক্তা (১৯৬৫), উত্তরণ (১৯৬৯), শিলা ও শৈলী (১৯৬৭), সুর ও ছন্দ (১৯৬৭), যা হতে পারে (১৯৬২), একে একে এক (১৯৬৯), ধানকমল (১৯৬৯), উত্তরণ (১৯৬৯), ত্রিমাত্রিক (১৩৭৩)
আনিস চৌধুরী : মানচিত্র (১৯৬৩), এ্যালবাম (১৯৬৫), চেহারা (১৯৭৯), যেখানে সূর্য (১৯৭৪), তবুও অনন্যা, হাইজ্যাকার
আনোয়ার তালুকদার : দাঁড়াবো শুধুই (১৯৭২), উৎস থেকে সমুদ্দুর (১৯৭৪)
আফসার আহমেদ : প্রেমপুরাণ (১৯৯৯)
আব্দুর রাজ্জাক : মঞ্চে যা দেখবেন (১৯৮১), ময়নার বিয়ে (১৯৮২), চুপ থাকবেন না (১৯৮৪), ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়ে (১৯৮৫), ভুল যখন ভাঙলো (১৯৮৫), রক্তে আঁকা মানচিত্র (১৯৮৪)
আবদুল মতিন খান : মাননীয় মন্ত্রীর একান্ত সচিব (১৯৮০), সম্মেলন (১৯৮১), শকুন্তলা (১৯৮১), গিলগামেশ (১৯৮২), বজ্রানলে ও লালু (১৯৮২)
আবদুল মান্নান সৈয়দ : না ফেরেশতা না শয়তান (১৯৭০-৭১), সুখ-অসুখ (১৯৬৭), যুক্তিহীন যুগ (১৯৬৮), এসো অসম্ভব, এসো (১৩৭৩), সংসার (১৯৭০), একটি ভীষণ খেলা (১৩৭৩), বিশ্বাসের তরু, স্বর্গোদ্যান (১৯৭৯)
আবদুল হক : অদ্বিতীয়া (১৯৫৬), ফেরদৌসী (১৩৭১), সোনার ডিম ও অন্যান্য নাটিকা (১৯৭৬), অনুবাদ নাটক : পুতুলের সংসার (১৯৬৬), প্রেতাত্মা (১৯৬৬), মহাস্থপতি (১৯৬৬), রমমার্গ হোম (১৯৬৭), হেড্ডা গাবলার (১৯৬৭), ইলিনয়ে অব লিঙ্কন (১৯৬৭), জন গ্যাব্রিয়েল বর্কম্যান (১৯৬৮), গণশত্ররু (১৯৯২)।
আব্দুল হাই দূর্বার : ময়নার চর (১৯৭৩), এরফান বাওয়ালীর কবর (১৯৮৮), ধোলাই (১৯৯৬), বদহজম, পথনাটক: আহত একুশ (১৯৯৪), নয়ছয় (১৯৯৬), ফিরে দেখা (২০০০), লড়াই (১৯৮৬), স্বাধীনতা কথা বলে (১৯৮৭)
আব্দুল হালিম আজিজ : পোস্টার (১৯৮৪), শেষ যুদ্ধ (১৯৮৪), চিতেশ্বরের কইতরী (১৯৮৫), ইচ্ছামতির কিচ্ছা (১৯৮৬), তিন পুরুষের মাথায় (১৯৮৯), হানাদার (১৯৯১), রূপবতী (১৯৯২), বুদ্ধু (১৯৯৭), মানুষ সংবাদ (২০০২)
পথনাটক: রাক্ষস (১৯৮৫), মহারাজের দেশে (১৯৮৭), লড়াই (১৯৮৮), রাজার হলো সাজা (১৯৯০), ঘাতক (১৯৯২), ঘাতক সমাচার (১৯৯৮), খেলাধুলা (১৯৯৯), আমাদের কথা (২০০৩)
আবদুল্লাহ আল মামুন : সুবচন নির্বাসনে (১৯৭৪ প্র. অ.), এখন দুঃসময় (১৯৭৪), এবার ধরা দাও (১৯৭৭), সেনাপতি (১৯৮০, ১৯৭৯), অরক্ষিত মতিঝিল (১৯৮০, ১৯৮২), ক্রসরোডে ক্রসফায়ার (১৯৮১), আয়নায় বন্ধুর মুখ (১৯৮৩), শাহজাদীর কালো নেকাব (১৯৮৩), এখনও ক্রীতদাস (১৯৮৪), আমাদের সন্তানেরা (১৯৮৯), তৃতীয় পুরুষ (১৯৮৮), দূরপালা (১৯৮৮), তোমরাই (১৯৮৮,), কোকিলারা , মুক্তিযুদ্ধের নাটক সমগ্র (১৯৯৩), স্পর্ধা (১৯৯৪), উজান পবন (১৯৭৫), বুদ্ধিজীবী (১৯৭৪), স্পর্ধা (১৯৯৩), মাইক মাস্টার (১৯৯৭), দ্যাশের মানুষ (১৯৯৩), তাহারা তখন (১৯৯৬), মেরাজ ফকিরের মা (১৯৯৬), মেহেরজান আর একবার (১৯৯৮, ১৯৯৭), চরিদিকে যুদ্ধ (১৯৭৬) ডক্টর ফস্টাস, একা (১৯৯৪)
আবদুল্লাহেল মাহমুদ : কৈতর্বগাথা (২০০০), নানকার পালা (১৯৮৭), প্রাকৃতজন কথা (১৯৯৭), সাত পুরুষের ঋণ (১৯৮২), প্রাকৃতজন কথা (১৯৯৭)
আবদুস সেলিম : হিম্মতী মা (১৯৮৫ ), গ্যালিলিও (১৯৮৮ )
আবু জাফর শামসুদ্দীন : শনিগ্রহ ও পৃথিবী (১৯৫৩)
আবুল ফজল : একটি সকাল (১৯৩৬), আলোকলতা (১৯৩৬), স্বয়ম্বরা (১৯৬৬), কায়েদে আজম (১৯৪৬), ছদ্মবেশী (১৯৭০), প্রগতি (১৯৪৮)
আমিনুর রহমান : অলিখিত সংলাপ (১৯৯১), একজন তাহমিনা (১৯৯১), অংকুরের ডাক (১৯৯৩)
আরিফুল হক রুজু : জনম দুঃখী মা (১৯৯২), লক্ষ্মী নূরজাহান (১৯৯৩), কার্তিকের জ্যোৎ¯œা (১৯৯৪), ভালোবাসা বন্ধ থাকবে (১৯৯৪), মানচিত্রের গল্প (১৯৯৭), তবু স্বপ্ন (২০০০), গন্তব্যহীন গন্তব্য (২০০২), পথনাটক : কল্পকাহিনী-১ (১৯৯৪), একটি কারখানার গল্প (১৯৯৪), কল্পকাহিনী-২ (১৯৯৫), দাদা আর যাবো না (১৯৯৬)
আল মনসুর : পোড়াবাড়ী (১৯৫৫), বোবা মানুষ (১৯৫৬), হে জনতা আরেক বার (১৯৭৪), রোলার ও নিহত এল এম জি (১৯৭২), বিদায় মোনালিসা (১৯৭৪), রেভ্যুলিউশন ও খৃষ্টাব্দ সন্ধান (১৯৭২)
আলাউদ্দিন আল আজাদ : ইহুদীর মেয়ে (১৯৬২), রঙিন মুদ্রারাক্ষস (১৯৯৪), মরক্কোর যাদুঘর (১৯৫৯), ধন্যবাদ (১৯৫১), নিঃশব্দ যাত্রা (১৯৭২), নরকে লাল গোলাপ (১৯৭৪), মায়াবী প্রহর (১৯৬৩), জোয়ার থেকে বলছি (১৯৭৪), সংবাদের শেষাংশ (১৯৭৫), মেঠো ফুলের ঠিকানা (১৯৭৫), সংবাদ শেষাংশ (১৯৭৫), হিজল কাঠের নৌকা (১৯৭৬), হে সুন্দর হে জাহান্নাম (১৯৮৮)
আলী আনোয়ার মোলা : আয়না (১৯৭৪), স্টেজ রিহার্সেল (১৯৭৫), বোবা মিনার (১৯৭৫), চার্টার অব ডিমান্ড (১৯৭৯)
আলী যাকের : দেওয়ান গাজীর কিস্সা (১৯৭৬), বিদগ্ধ রমনীকূল (১৯৭৪), এই নিষিদ্ধ পলীতে (১৯৭৩), দর্পণ (১৯৯৩) সৎ মানুষের খোঁজে (১৯৭৪), কোপেনিকেরক্যাপ্টেন (১৯৮০-৮১,), শঙ্খচিল (১৯৯৭ ), কোপেনিকের ক্যাপ্টেন (১৯৮০)
আসকার ইবনে শাইখ : বিরোধ (১৯৪৭), পদক্ষেপ (১৯৪৮), দুরন্ত ঢেউ (১৯৫১), অগ্নিগিরি (১৯৫৭), অনুবর্তন (১৯৫৯), অনেক তারার হাতছানি (১৯৬৫), দুর্যোগ (১৯৫৩), প্রচ্ছদপট (১৯৫৮); রক্তপদ্ম (১৩৬৮), অগ্নিগিরি (১৯৫৭), অনুবর্তন (১৯৫৯), রাজ্য-রাজা-রাজধানী (১ম ও ২য় পর্যায়) (১৯৮২), এছাড়া শেষ অধ্যায় (১৯৫২), প্রতীক্ষা (১৯৫৭), বিল বাওড়ের ঢেউ (১৯৫৫), এপার ওপার (১৯৫৫), তীতুমীর (১৯৫৭), কর্ডোভায় আগে (১৯৮০), রাজপুত্র (১৯৮০), মেঘলা রাতের তারা (১৯৮১), কন্যা জায়া জননী (১৯৮৭), লালন ফকির (১৯৫৯), বিদ্রোহী পদ্মা (১৯৪৯)
আশীষ খন্দকার : একটি শিরোনামহীন নাটক (১৯৯৮), আলোছায়া (১৯৯৯)
আসাদুজ্জামান নূর : মোহনগরী (১৯৮২)
আসাদুল্লাহ ফারাজী : মানুষ মানুষ, রাইক্ষসের পাচালী, বীরাঙ্গনা বিমলরা, সী মোরগ, সোহাগী বাঈদানীর ঘাট
পথনাটক :রাইক্ষসের ক্ষিধা, সুখের ঠিকানা-১, সুখের ঠিকানা-২, যৌতুক
আসিফ মুনীর : আসমান তাঁরা শাড়ী (১৯৯১), বাজিমাৎ (১৯৯৪)
আহমদ আল মামুন : সকিনা, নয়নতারাদের গপ্পো, এমন হলে কেমন হয়, জীবন যেমন, হলুদ ধানের কাব্য, পথনাটক: মানুষ মানুষ খেলা, ডুগডুগি, নূরা পাগলার বিয়া, রূপকথা নয়, সুনীতি কত দূর, ঘামের ফোঁটায় আগুন, ক্যামেরা, জয়নাব, চেয়ার, গডজনতা, বোবা কান্না, আম্বিয়াদের কথা
আহমেদ কামাল খোকন : অবশিষ্টাংশ (১৯৯৯), চোষকাগজ (১৯৯৯), চক্রবন্দী (২০০০), পথনাটক: নমস্য নমস্কার (১৯৯৯)
আহমেদ মুসা : হবুচন্দ্র সমাচার, এক যে ছিল আকাল, নাদের আলীর সাহিত্য সম্মেলন
আহ্মেদ সিদ্দিকী : সক্রেটিসের সন্ধানে (১৯৮৫), চুরি কেইস (১৯৮৮), রূপকুমার (১৯৯৬)
ইউসুফ আলী খোকন : জলপরী (২০০৪), পথনাটক: খনন (২০০৩), লালী (২০০৫)
ইজিবর রহমান : মৌচাক, ইদানীং আমরা সেপাই (১৯৮৯), মুখোশ (১৯৯৩), প্রেক্ষাপট (১৯৯১), ক্রমশ, সামনে খোঁড়া কবর, ডাস্টবিন সমাচার
ইনামুল হক : গৃহবাসী (১৯৮৮, ১৯৮৩ প্র. অ.)
ইব্রাহীম খাঁ : কামালপাশা (১৩৩৪ ব.), ঋণ পরিশোধ (১৯৫৫), ভিস্তি বাদশা (১৩৫৭ ব.), মর্ম্মর স্বপ্ন (১৩৩৩), কাফেলা
ইব্রাহীম খলিল : সমাধি (১৯৫৭), স্পেন বিজয়ী মুসা (১৯৪৯), ফিরিঙ্গী হার্মাদ (১৯৫৩), ফিরিঙ্গীরাজ (১৯৫৪), কিসসা নয়, কাহিনী (১৯৫৬), নূরজাহান (১৯৭০)
ইন্দু সাহা : বিন্দু থেকে চেতনা (১৯৭৬), কিষাণ বৌ (১৯৭৭), বাঘ ও পদাতিক (১৯৭৭), টার্মিনাল (১৯৭৮), টুনি তালসোনাপুর যাচ্ছে (১৯৭৯), একজন মুন্সীর পোস্টার (১৯৮০), দেয়াল ভাংবোই (১৯৮৬), নূরবানু ও মানচিত্র (১৯৮৮), অরণ্য জনারণ্য (২০০৪)
ইসরাফিল শাহীন : পুতুল খেলা (১৯৯২)
এ এইচ এম বসিরউদ্দীন : মোহাম্মদী বেগ (১৯৫৪), সংশোধন (১৯৫৪), সোহরাব রুস্তম (১৯৫৪)
এ কে কবীর : নতুন বিপ্লব, লালু ঠিকাদারের বস্তি, প্রতিবাদ, নির্বাসন, আশ্রয় শিবির, হোয়াইট অক্টোপাস, এই অরণ্যে, মধুপাগলা, বটতলার পাগলা, কিল দেশ, প-িত মশাই, মাধুরীর বিয়ে, রূপালী চাঁদ, আরশীনগর, সাম্বপ্রতিক সমাচার
পথনাটক : রক্তাক্ত ফাল্গুন, লালগোলাপ, যুদ্ধ যুদ্ধ, কদমতলী আর্মি ক্যাম্পে, মুক্তযোদ্ধা
এম. এ. ওয়াজেদ : রক্তের ঋণ (১৯৮৪), পল্লী মেয়ে (১৯৮৫), বাঁধো ব্যাটাকে (১৯৮৬), নতুন সূর্য (১৯৮৬), রক্তঝরা একুশে (১৯৮৭), সেই কাল রাত (১৯৮৭)
এম. এ. মজিদ : মোগল হাটের সন্ধ্যা (১৯৭৯), রতন মঞ্জরী (১৯৭৯), বিদ্রোহী বান্দা (১৯৭৯), কবি চদ্রাবতী (১৯৭৯), ঘুণে ধরা সমাজ (১৯৭৯), ফরিয়াদ (১৯৮০), ভিখারীর ছেলে (১৯৮০), চাকুরী চাই (১৯৮১), রঘু ডাকাত (১৯৮২), বিষে ডাকাত (১৯৮৩), রক্ত দিল যারা (১৯৮৪), নীল কুঠির কান্না (১৯৮৫), বাঙ্গালী (১৯৯৫), ৪২-এর বিপ্লব (১৯৮৬), রক্তের দাবী (১৯৮৭), দেশের ডাক (১৯৮৭), বেহুলা লখিন্দর (১৯৯৩), মহুয়া (১৯৯৪), লালন ফকির (১৯৯৪), ঘুমাও তুমি প্রিয়া (১৯৯৪), মহাকবি মাইকেল (১৯৯৫), বিদ্রোহী ফকির মজনু শাহ (১৯৯৫), উদয়নালা জ্বলছে (১৯৯৫), রক্তে রাঙা সোনার বাংলা (১৯৯৫), দাতা হাতেম (১৯৯৬), দংশন (১৯৯৬), ভাওয়াল সন্ন্যাসী (১৯৯৬), এই দেশ এই মাটি (১৯৯৭), পেটের জ্বালা (১৯৯৭), সুন্দরবনের ডাকাত (১৯৯৭), ঘুমন্ত সমাজ (১৯৯৭), রক্তে ধোয়া ধান (১৯৮৭), ঈশা খাঁ (১৯৮৭), থামাও যুদ্ধ (১৯৮৮), মানিকব পীরের দরগা (১৯৮৮), মাইনে করা মা (১৯৮৮), রাই-কমল (১৯৮৯), ভাষার ডাক (১৯৯০), জনতার শত্ররু (১৯৯০), সাত কোটির মুজিব (১৯৯১), স্বাধীনতার ডাক (১৯৯২), চুকনগরের গণহত্যা (১৯৯৩), বিদ্রোহী নজররুল (১৯৯৩), হাছন রাজা (১৯৯৩), নদীর নাম মহানন্দা (১৯৯৩), থামাও রক্তপাত (১৯৯৩), চারণ কবি মুকুন্দ দাস (১৯৯৪), নেতাজীর ডাকে দিল্লী চল (১৯৯৪), সাঁই ফকির আলেফ চাঁন (১৯৯৪), সালাম বিজয়ী বীর (১৯৯৪)
এম. গোলাম রহমান : পলাশী (১৯৫৪), ইরানের দুহিতা (১৯৫৫), ভুল যখন ভাঙলো (১৯৬১), চৌধুরী লজ (১৯৬৬), জাহাঙ্গীর (১৯৬৬)
এম. টি. রহমান : প্রবাহ (১৯৬৩)
এস. এম জয়নাল আবেদীন : জীবনযুদ্ধ (১৯৮৫), নো ভেকেন্সি (১৯৮৫), পলাশডাঙ্গার ময়না (১৯৮৫), মাধববাবুর তানপুরা (১৯৮৫), স্বর্গের সন্ধানে (২০০৫)
পথনাটক :একজন রাহেলা (২০০৫)
এস.এম. সোলায়মান : এই দেশে এই বেশে (১৯৮৭), ইঙ্গিত (১৯৮৫), গনি মিয়া একদিন (১৯৯৭), আমেনা সুন্দরী (১৯৮৯), আহ্ কমরেড, মুখোমুখি কংস, ক্ষ্যাপা পাগলার প্যাচাল, সোজন বাদিয়ার ঘাট, এলেকশান ক্যারিকেচার, ইন্সপেক্টর জেনারেল, তালপাতার সেপাই, রাক্ষস-খোক্কস, সক্রেটিসের সন্ধানে এবং জনতার শত্রু (১৯৯০), কোর্ট মার্শাল (১৯৯৩)
ওবায়েদ-উল-হক : দিগি¦জয়ী-চোরাবাজার (১৯৫০), এই পার্কে (১৯৬৩), টমি আর পুসি (১৩৪৩)
কচি খন্দকার : জ্বালাতন (১৯৭৯), একাল মানুষের গপ্পো (১৯৯১) পথনাটক : ভূতের গদি (১৯৮৪), ঐতিহ্য ও কিছু প্রশ্ন (১৯৯৬), একটি অসম্ভব প্রত্যাশা (১৯৯৮), বিপন্ন দেশ, মানুষ, অস্তিত্ব (১৯৯৯), রক্তাক্ত (১৯৯৯)
কবীর আনোয়ার : পোস্টার (১৯৮৬), জনে জনে জনতা (১৯৮৪)
কল্যাণ মিত্র : জল্লাদের দরবারে (১৯৭২), দায়ী কে (১৯৬০), প্রদীপ শিখা (১৯৬১), টাকা আনা পাই (১৯৬৫), কুয়াশা কান্না (১৯৬৫), অনন্যা (১৯৬৭), ত্রিরতœ (১৯৬৭), শপথ (১৯৬৭), শুভ বিবাহ (১৯৬৭), সাগর সেচা মানিক (১৯৬৮), একটি জাতি একটি ইতিহাস (১৯৭২), পাশের বাড়ি (১৯৭৭), বাইজী (১৯৭৭), লালন ফকির (১৯৭৭), চোরা গলি মন (১৯৬৬)
কাইজার আহমেদ : বায়ান্নের শকুন (১৯৮৩)
কাজী জাকির হাসান : জনৈকের মহাপ্রয়াণ (১৯৭৮), শরবিদ্ধ যন্ত্রণা (১৯৭৮), দিকচিহ্নহীন (১৯৭৯), রাজায় রাজায় (১৯৭৯)
কাজী মোহাম্মদ ইদরিস : স্ট্রিন্ডবার্গের সাতটি নাটক
কাজী মোহাম্মদ ইলিয়াস : স্মাগলার (১৩৬১)
কাজী রফিক : মনসার পালা
পথনাটক: সারি সারি লাশ, তারামন বিবি, চোর
কাজী রোজী : কুসুম বেত্তান্ত (২০০৪)
পথনাটক: পঞ্চদেব (২০০৪)
কালাম মাহমুদ : বিপ্লবের গান (১৯৯৩)
কালীপদ দাশ : জয়বাংলা, সোনার বাংলা, বীর বাঙালি, বাংলার মাটি, চারশো বিশ (১৯৫৬), বাস্তুহারা (১৯৫৬), জয় বাংলা (১৯৭১)
কুতুব উদ্দিন আহমেদ : প্রবালের ভিন্ন রং (১৯৯৮), নদীতে আগুন জ্বলে (১৯৯৯), সাদেক আলী ঘটক (১৯৯৯), অতএব শুভসংবাদ (২০০০), নাগীন (২০০১), একটি সুন্দর প্রেম (২০০৩)
খান মোহাম্মদ ফারাবী : আকাশের ওপারে আকাশ (১৯৮২)
খালেদ খান : শয়তানের আশ্রমী (২০০২), বাবার আঁকা লাল সূর্য (১৯৯৫)
খালেদা হানুম : সহসা জীবন (১৯৭৩)
খায়রুল আলম সবুজ : ন্তগোনে (১৯৯২), জাঁ আনুই
খায়রুল বাসার : জীবন এখানে কোরাস গান (১৯৯০), জনৈক ইমান আলী (১৯৯১), বার মাসে তের মুখোশ (১৯৯৪), পোকা (১৯৯৬), হালখাতা (১৯৯৮), বাস্তুভিটে (২০০২)
গগন তানু : দুঃশাসনের বেড়াজাল, চমক রতন বাংলার বীর, বীরাঙ্গনা
গিয়াসউদ্দিন সেলিম : ঠ্যারো (১৯৯১), চিলেকোঠা (১৯৯১)
গোলজার হোসেন : বিজয় (১৯৯০), স্বাধীন (১৯৯১), কদমতলীর কালাচাঁন (১৯৯৯), বাঁশ (২০০৩)
পথনাটক: আর কতদিন (১৯৯১), চোখ থাকতে অন্ধ (১৯৯১), সপ্ত ডিঙি পেরিয়ে (১৯৯২), নৈরাশ (১৯৯৩), হাবুরা (১৯৯৪), অচিনপুর (১৯৯৫), ভেলকি (১৯৯৫), ওরা কারা (১৯৯৭), জুলুম (১৯৯৮)
গোলাম সারোয়ার : ঘরজামাই (১৯৯৮), ভদ্দরনোক (১৯৯৮), সোঁদামাটির গন্ধে (২০০০), পালাকারের নকশা (১৯৯৭), ক্ষত মজুর খইমুদ্দিন (১৯৯১), পালা বদলের পালা (১৯৯১)
চিত্তরঞ্জন ঘোষ : শ্যামা প্রেম
জগলুল আলম : ছয় বেহারার পালকি (২০০০)
জসীম উদ্দীন : পদ্মাপার (১৯৫০), মধুমালা (১৯৫১), বেদের মেয়ে (১৯৫১), পল্লীবধূ (১৯৫৬), বাদলবাঁশী (১৯৫৬), করিম খাঁর বাড়ি (১৯৫৬), গ্রামের মায়া, জীবনের পণ্য, গাজনচরের কাইজা, ওগো পুষ্পধনু (১৯৬৮)
জহুরুল ইসলাম : নির্ভরযোগ্য গুজবে প্রকাশ (১৯৭৭), ঠিকানা পেয়েছি (১৯৭৭)
জামালউদ্দিন হোসেন : কবর দিয়ে যাও (১৯৮৬)
জামিউর রহমান লেমন : জন হেনরি (১৯৮৬), একজন আমেনা (২০০২)
পথনাটক : ঐ ওরা আইতাছে (১৯৮৫), কুকুর ও বংশদ- (১৯৮৭), সোনালী স্বপ্ন (২০০৩)
জাহাঙ্গীর আলম সুজন : সূচনা (১৯৯৩), ছন্দপতন (১৯৯৬), নীলা (১৯৯৭), কফি হাউজ (১৯৯৯), বিপরীত স্রোত (২০০০), তারপর (২০০০), দুর্গম পথ (২০০১), হৃদয়পুরের বৃত্তান্ত (২০০২), তিথির তৃতীয়া (২০০২), বিবিসাব (২০০৪)
পথনাটক: অন্ধকারে মানুষ (১৯৯০), প্রয়োজন বনাম লোভ (২০০২), কোন এক নঈমুদ্দী (২০০২), অতএব হোসেন আলী (২০০৫)
জাহাঙ্গীর আলম : পথনাটক: শেষ ঠিকানা (১৯৯৪), ননস্টপ (১৯৯৫), কালের লড়াই (১৯৯৫), জুতা আবিষ্কার (১৯৯৫), ভালো হইতে পয়সা (২০০০), বাড়াও দুটি হাত (২০০১)
জাহিদ রিপন : পদ্মগোখরো (২০০৭)
জি এম. মেহেদি হাসান : বর্তমান দিনকাল (১৯৯৫), অনুশোচনা (১৯৯৬), শ্রমিকের অধিকার (১৯৯৮)
পথনাটক: সঞ্চয় (১৯৯৬), আন্দোলন (১৯৯৭)
জিয়া হায়দার : শুভ্রা সুন্দর কল্যাণী আনন্দ (১৯৭০), দ্বারররুদ্ধ (আতাউর রহমানের সঙ্গে যুগ্মভাবে অনূদিত, ১৯৭০), প্রজাপতি নির্বন্ধ (আতাউর রহমানের সঙ্গে যুগ্মভাবে অনূদিত, ১৯৭০), এলেবেলে (১৯৮১), ডক্টর ফস্টাস (অনুবাদ, ১৯৮১), দুটি নাটিকা (উন্মাদ সাক্ষাৎকার ও মুক্তি মুক্তি (১৯৮২), অ্যান্টিগোনে (অনুবাদ, ১৯৯০), তাইরে নাইরে না (১৯৯২)
জুনায়েদ ইউসুফ : বাড়িতে একা (১৯৯৮), বন্ধু খুঁজছে তনতু (২০০১)
জোবেদা খানম : একাঙ্কিকা (১৩৭০), ওরে বিহঙ্গ (১৩৭৫), ঝড়ের স্বাক্ষর (১৯৬৭)
ঝিমিত ঝিমিত চাকমা : অহ্দত (১৯৯৫), আন্দলত পহর (১৯৯৬), কাত্তোন (২০০০), বড়গাঙ (২০০৫)
ডাক্তার শাহাদত আলী খান : ছোটমা (১৯৫৩), ভুল (১৯৫৫), মাটির বুকে (১৯৬০), প্রতিশোধ (১৯৬৮), প্রভার বিয়ে (১৯৬৮), সংঘাত, বিভ্রাট, চিরকুমারী সভা, মনসবদার (১৯৬৯)
তানভীর আহমদ সিডনী : লাশঘর (২০০৭), কৃষ্ণকাঠি, মঙ্গলমুখ
তা. ম. আসাদুজ্জামান : জল্লাদের পতন, এক নদী রক্ত
তারিক আনাম খান : কঞ্জুস (১৯৮৩)
তাহমিনা আহমেদ : ক্রুসিবল (১৯৯৮)
তোফাজ্জল লিটন : পাইতাল
দিলীপ সরকার : বাংলার বিজয়, বাংলার বীরাঙ্গনা, অনেক রক্তের পরে
নজরুল ইসলাম খান : গুড বাই ঢাকা (২০০৩)
নাজমুল আলম : উপরে উঠার সিঁড়ি, সারেং, মরা মানুষের পাঠশালা ও ফুল্লরা অপেরা (১৯৯৩)
নাজমুল আহসান : শিরায় শিরায় ঘণ্টা বাজে (১৯৭৯), বিবর্তনের শেষ সনদ (১৯৮০), বর্ণমালার মিছিল (১৯৮০), প্রেম নেই প্রেম চাই (১৯৮৩), গাজী কালু চম্পাবতী (১৯৮৪), সুখী রমণী গুনাই বিবির কেচ্ছা (১৯৮৬), মহুয়ার পালা (১৯৯২), দুই বিঘা জমি (১৯৯৬), পালা বদলের পালা (১৯৯৬), সৎ মা (১৯৯৭), কমলা সুন্দরী (২০০০)
নাজিম মাহমুদ : উজীর ঘোড়ার গপ্পো (১৯৯৪)
নারায়ণ চন্দ্র নন্দী : আমরাও মানুষ (২০০০), মিনার স্বপ্ন (২০০১), পথনাটক: আহ্বান (১৯৯৯), ছেলে কার (২০০০), আগামী (২০০০), সুখির স্বপ্ন (২০০২), কলিম চাচার সংসার (২০০২), সোনালী দিগন্ত (২০০২)
নাসরীন জাহান : স্বপ্নবাজ (১৯৯৯)
নাসিরউদ্দিন ইউসুফ : একাত্তরের পালা (১৯৯৩)
নাসের সরকার মনি : টাইসনরা
পথনাটক: রফিক ব্রীজ (১৯৯৪), ক্যাম্পাস থেকে কারাগারে (২০০০), আলোর পানে (২০০২), আর্সেনিক বিষক্রিয়া (২০০২), মুখপোড়া বর্ণচোরা (১৯৯৯), স্বপ্ন (২০০১)
নির্মল ঘোষ ঝুনু : রক্তশপথ (১৯৯৭), কাফন (১৯৯৭)
পথনাটক :প্যাঁচা (১৯৯৭), যৌতুক (১৯৯৯)
নিশান সাবের : বিমূর্ত বিবর্তন (২০০০), এবং (১৯৯৯), বাহান্নো (১৯৯৮)
পথনাটক : বোবা জননী (২০০১), বিস্মৃতি (২০০১), ধবংশ চাই না (২০০০), তামাশা (২০০২), ইদারা (২০০১)
নীলিমা ইব্রাহীম : দু’য়ে দু’য়ে চার (১৯৬৪), যে অরণ্যে আলো নেই (১৯৭৪), রোদ-জ্বলা বিকেল (১৯৭৩), সূর্যাস্তের পর (১৯৭৪), আমি বীরাঙ্গনা বলছি (১৯৯৬)
নীহারেন্দু কর : সুখিয়া দুখিয়ার সুখ দুঃখ
নুরুল ইসলাম : ইদানিং ক্লিওপেট্রা, রাঙা বৌদি, বংশ বিড়ম্বনা, বিদ্রোহী মুসা শাহ
নূরুল করিম নাসিম : সোনার হরিণ, বিজন বাড়ি নাই (১৯৭৪), মানুষের জন্য (১৯৭৬), সম্রাট সাবধান, মহারা আসবেন
নুরুল মোমেন : রূপান্তর (১৯৪৮); নেমেসিস (১৯৪৮), যদি এমন হোত (১৯৫৭), পঞ্চাঙ্ক নাটক। নয়াখান্দান (১৯৬২), আইনের অন্তরালে (১৯৬৭), শতকরা আশি (১৯৬৭), যেমন ইচ্ছা তেমন (১৯৭০), হোসেন সফদারের উইল (১৯৭০), রূপলেখা (১৯৭০), আলোছায়া (১৯৬২)
নূরউল আলম : এক বৃন্তে দু’টি ফুল (১৯৬৮)
পথনাটক: খেয়ালী রাজা (২০০২)
পরেশ আচার্য : প্রতিজ্ঞা, কার পাপে, কান পেতে শোন, আকাশ অনেক উঁচু, অনেক আলো কিছু অন্ধকার, খোক গানের মাস্টার, কনক কেন কাঁদে, দুর্গতিনাশিনী দুর্গা, বিকেলে ভোরের ফুল, প্রতিদিনের একটি দিনে, এরপর তারপর, মেঘে ঢাকা আকাশ, যদি জানতেন
পান্না কায়সার : মুক্তিযুদ্ধ আগে ও পরে (১৯৯১), মুক্তি (১৯৯২), নীলিমায় নীল (১৯৯২), হৃদয়ে বাংলাদেশ (১৯৯৩), মানুষ (১৯৯৪), অন্য কোনখানে (১৯৯৪), তুমি কি কেবলি ছবি (১৯৯৪), রাসেলের যুদ্ধযাত্রা (১৯৯৪), দাঁড়িয়ে আছি গানের ওপারে (১৯৯৪), আমি (১৯৯৪), না পান্না না চুনি (১৯৯৫), অন্য রকম ভালবাসা (১৯৯৫), সুখ (১৯৯৫)
প্রদীপ দেওয়ানজী : আসবে সুঠাম সময়, অবাক রাজার অবাক কা-
প্রসাদ বিশ্বাস : অবিচার (১৯৫৮), জবাবদিহি (১৯৫৯), পাকা রাস্তা (১৯৬১), ভোরের স্বপ্ন (১৯৬২), নাজেহাল (১৯৬৩), ফেরিওয়ালা (১৯৬৩), পরাজয় (১৯৬৩), বিচার (১৯৬৩), বিশ্বজননী সারদামনি (১৯৮৯)
ফকীর লোকমান : হামিক যুগের ডাক (১৯৫২)
ফতেহ লোহানী : একটি সামান্য মৃত্যু, বিলাপে বিলীন (১৩৭৪)
ফররুখ আহমেদ : নৌফেল ও হাতেম (১৯৬১)
ফররুখ শিয়র : ব্ল্যাকমার্কেট (১৯৫৩), সামনের পৃথিবী (১৯৬০)
ফরহাদ মযহার : প্রজাপতির লীলালাস্য (১৯৭৫), ঘাতক দেশকাল (১৯৭৮)
ফয়েজ আহ্মদ : মুক্তাহার (১৯৬০), শেষ ফল (১৯৬৬), হারানো মানিক (১৯৬৮)
ফাল্গুনী হামিদ : হায়েনা (১৯৯২ ), দোররা (২০০০)
ফুজায়েল আহমদ : শকুন (১৯৯২), গ্রামের নাম রসুলপুর (১৯৯৩)
পথনাটক :একটি লাশ ও কিছু কথা (২০০১), আরমান আলীর বাংলাদেশ (২০০৩)
বজলুল করিম : আর্মস এন্ড দি ম্যান, সবাই আমার ছেলে, সপ্তসূরের থিবী আক্রমণ, দাঁনতোর মৃত্যু (১৯৭৭)
বন্দে আলী মিয়া : মস্নদ (১৯৩১), বনের ফুল (১৯৩৫), কামাল আতার্তুক (১৯৪৮), বৌদিদি (১৯৪৯), রেস্টুরেন্ট (১৯৪৯), জোয়ার ভাটা (১৯৫৫)
বাবুল বিশ্বাস : হনন (১৯৯৬), পোড়ামাটি (২০০১), ভোজ (২০০১)
বিপ্লব বালা : বিষাদ সিন্দু ১ম পর্ব (১৯৯১ ) ও ২য় পর্ব (১৯৯২ ), হ্যামলেট ওহ্ হ্যামলেট (১৯৯৫), গুনাই বিবি (২০০০), কে জাগিবে আজ (১৯৯৪), হায় বাংলা হায় বেহুলা (১৯৯৫)
বিশ্বজিৎ চৌধুরী বাবু : ফতোয়া (১৯৯৭), মুক্তিযুদ্ধের কথকথা (২০০১)
পথনাটক: মহারাজার খতিয়ান (১৯৮৮), সংগ্রাম (১৯৮৮), এবং জারজ সন্তান (১৯৮৮), রঙ্গিলা রাজা (১৯৮৮), গাঁজা (১৯৯৫), ভালোবাসা অতঃপর (১৯৯৫), ভুল (১৯৯৬), মশা (২০০৩)
বিশ্বনাথ বিশ্বাস : সূর্যোদয়ে গন্ধ (১৯৭৯), তুমি সে সখা (১৯৮৪), অন্যপথ (১৯৮৪), শ্রীমতি ভয়ংকরী (১৯৮৮), জাতের পদাবলী (১৯৯৬), চার কনে এক বর (১৯৯৭), বিদায় প্রার্থনা (১৯৯৮), তথৈবচ (২০০০)
বিশ্বামিত্র : মৃত্যু ও ক্ষুধা (১৯৫৫), সীমা (১৯৫৫)
বুলবন ওসমান : পা-ুলিপির আড়ত (১৯৭৩)
বৃন্দাবন দাস : পথনাটক: কাঁদতে মানা (১৯৯৭), অরণ্য সংবাদ (১৯৯৭), দড়ির খেলা (১৯৯৮)
বোরহান উদ্দিন আহমদ : টিপু সুলতান (১৯৫২), মীর কাশিম (১৯৫২)
ভাস্কর : বিদ্রোহী বাঙালি
মনজুরুল হাসান দুলাল : চাঁদের অমাবস্যা (২০০৭), কাঁদো নদী কাঁদো (২০০৭)
মনজুরুল হক মিলন : জোয়াল (১৯৯৪), ঠগ (১৯৯৭), হুজুর কেবলা (২০০০), গ্রাস (১৯৯৮), মহুয়া সুন্দরী (১৯৯৬), ইয়াসীন চোরা (২০০৫)
পথনাটক: সংবিদ (১৯৯৩), পল ইন পুশ ব্যাক (১৯৯৪), ফতোয়াবাজ (২০০১), কি চমৎকার গণতলা (১৯৯৫)
মনির হুসেন : মন্তব্য নি®প্রয়োজন (১৯৯১), কালের কাল (২০০২)
পথনাটক: মিসকিন (১৯৯৩), জঞ্জাল (১৯৯৪), বালি (১৯৯৩), জনৈক ক্যানভাসার (১৯৯২), চীজ (১৯৯০)
মনোজ সেনগুপ্ত : থেটারবাবু (১৯৭৯), তিন সংগী (১৯৭৯), সূর্য ওঠার আগে (১৯৮২), বিক্রম ও আদালত (১৯৮৮), মহড়া চলছে (১৯৯০)
মমতাজউদদীন আহমদ : সাতঘাটের কানাকড়ি (১৯৯১) রাজা অনুস্বারের পালা (১৯৮৮), বিবাহ ও কি চাহ শঙ্খচিল (১৯৭৫), ফলাফল নি¤œচাপ (১৯৭৬), সজলের মা (২০০৩), এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম (১৯৭১), যামিনীর শেষ সংলাপ (১৯৭৬), স্পার্টাকার্স বিষয়ক জটিলতা (১৯৭৪), হরিণ চিতা চিল (১৯৭৪), নাট্যত্রয়ী : স্বাধীনতা আমার স্বাধীনতা, স্বাধীনতা যুদ্ধবিষয়ক চারটি একাঙ্কিকা: স্বাধীনতা আমার স্বাধীনতা (১৯৭১); এবারের সংগ্রাম, (১৯৭১); স্বাধীনতার সংগ্রাম, (১৯৭১); বর্ণচোরা, (১৯৭২), হৃদয়ঘটিত ব্যাপার স্যাপার (১৯৭৭), চয়ন তোমার ভালোবাসা (১৯৭৮), এই সেই কণ্ঠস্বর (১৯৮৪), প্রেম বিবাহ সুটকেস (তিনটি হাসির নাটক, ১৯৮৪), বিবাহ (১৯৮৫), বকুলপুরের স্বাধীনতা (কিশোর নাট্য সংকলন, ১৯৮৬), রঙ্গ পঞ্চদশ (১৯৮৭), পুত্র আমার পুত্র (১৯৯৪), হাস্য লাস্য ভাষ্য (১৯৯৭), একই নাটক চার রকম (১৯৯৭), তরুকে নিয়ে নাটক (১৯৯৮), মনের মতো রাজা (১৯৯৯), বটবৃক্ষের ধরম করম (২০০১ প্র. অ.)
রূপান্তরিত নাটক: দখিনের জানালায়, ক্ষত বিক্ষত (১৯৮৬), ঝরা পাতা; খামাখা খামাখা (১৯৯৮), জমীদার দর্পণ (১৯৮৩), রাক্ষুসী (১৯৯১), গন্তব্য বহুদূর (১৯৯১)
মলয় ভৌমিক : ভূঁই (১৯৯০), গরু (১৯৯১), শতগ্রন্থি (১৯৯২), হঠবন্ধ (১৯৯৯), শবব্যবচ্ছেদ (২০০০), চৌরাস্তা (২০০১), দায়-দায়িত্ব (২০০৩), বহে প্রান্তজন (২০০৩ )
মহিউদ্দিন ছড়া : হ্যালুসিনেশন (১৯৯২), অতএব সাবধান (১৯৯৪), ব্যাচেলর (১৯৯৪), শয়তান (১৯৯৭), পাপচক্রে (১৯৯৭), ধলা মিয়ার বিয়ে (২০০০)
মহীউদ্দীন : ফাউস্ট (১৯৭৩)
মাজহারুল হক পিন্টু : অন্তর বাউল, বিষক্ষয়, পৃথিবীর জনে, ধূসরতীর্থ
পথনাটক: অন্তর বাজাও (১৯৯৮), ডেট লাইন (২০০১), ফিল্মি দুনিয়ার বিষ অর্জন (১৯৯৫), ঘনঘোর বরষার (১৯৯৫), ক্যানভাস (১৯৯৭)
গীতিনাট্য: বাংলাদেশের ঢোল (১৯৯৬), কর্মফল (১৯৯৬)
একক নাট্য: জাল (১৯৯৮)
মানব সরকার : নো ম্যানস ল্যান্ড
মান্নান হীরা : পথনাটক সমগ্র ১ (২০০৭), মৃগনাভী (১৯৯১), শেকল (১৯৯১), আদাব (১৯৯১), পাথর (১৯৯২), ফুটপাত, রেফারী, কোরিওলেনাশ
মঞ্চনাটক: খেলা খেলা (১৯৯৮), আগুনমুখা (১৯৯৪), একাত্তরের ক্ষুদিরাম (১৯৯৬), ভাগের মানুষ, ময়ূর সিংহাসন (২০০১), একজন লক্ষিন্দর (১৯৯৭)
মামুনুর রশীদ : পশ্চিমের সিঁড়ি (১৯৭২), গন্ধর্ব নগরী (১৯৭৪ ), ওরা কদম আলী (১৯৭৮), ওরা আছে বলেই (১৯৮০), মে দিবস (১৯৮১), ইবলিশ (১৯৮১), এখানে নোঙর (১৯৮৪), খোলা দুয়ার (১৯৮৪), গিনিপিগ (১৯৮৩), অববাহিকা (১৯৮৪), নীলা (১৯৮৭), সমতট (১৯৮৮), পাথর (১৯৯২), জয়জয়ন্তী (১৯৯৭), রাষ্ট্র বনাম (১৯৯৭), লেবেদেফ (১৯৯৭, ১৯৯৫ ), সঙক্রান্তি (২০০১)
মালিহা খাতুন : প্রফেসর (১৯৬৪), সূর্যের ওপিঠ (১৯৮৫), আলো না আলেয়া (১৯৮০), অনেক সূর্যের আলো (১৯৮৫), সব সোনা কি আলো
মাসুম রেজা : আরজচরিতামৃত, কাকলাস (১৯৮৬), জীবন পোস্টার, খোয়াব, শারমেয়, লেবাস, বিরসা কাব্য, শামুকবাস, নিত্যপুরাণ (২০০১ প্র. অ.)
মাহতাবউদ্দীন সরকার : আজাদীর পরে (১৯৫৫)
মাহবুব তালুকদার : হ্যারিকেন
মাহমুদুল ইসলাম সেলিম : প্রাগৈতিহাসিক (২০০৭)
মিন্টু বসু : অন্য এক কালাপাহাড় (১৯৮৫), ঢোল (১৯৮৫), জনতা আর একবার (১৯৮৭), ঘাতক চারিদিকে (১৯৮৮), সরাইখানা (১৯৮৯), ইদানিং স্বদেশ (১৯৮৯), গৌরবগাঁথা (১৯৯২), ঐ মহামানব আসে (১৯৯৪), স্মরণ (১৯৯৭), সবার উপরে মানুষ সত্য (২০০২), গ্রাস (২০০২)
পথনাটক: বুকের মধ্যে জ্বলন্ত প্রতিবাদ (১৯৮৮), ভোটার বিদ্রোহ (১৯৮৮), বুক বেঁধে তুই দাঁড়া দেখি (১৯৯১), এ লজ্জা লুকাবো কোথায় (১৯৯৫), বিপ্লবের মৃত্যু নেই (২০০০), আলোর পথযাত্রী (২০০০), এসো প্রতিবাদের রণাঙ্গণে (২০০৩)
মিতুল সাইফ : রক্তাক্ত একাত্তর (১৯৯০), এই প্রবাহ (১৯৯০), দেয়াল মেয়ে মানুষ (১৯৯২), সুইট ভাষা বাংলা (১৯৯৩), অন্ধকারের দেশে (১৯৯৪), উল্টো জীবন (২০০০), মরা গাঙে জোয়ার (২০০০), পাচু বিবির গল্প (২০০০)
পথনাটক :এখনও অন্ধ কার (১৯৯৬), সবুজ গা এর ময়না (১৯৯৪), সোনার বাংলা (১৯৯৮)
মিলন চৌধুরী : যায় দিন ফাগুনো দিন (১৯৭৮), চর্যাপদের হরিণী (১৯৭৭), একজন পিরামিড (১৯৮৩), আভ্যন্তরীণ খেলাধুলা (১৯৮৬), নিবারণের স্বপ্ন স্বদেশ (২০০১)
মিহির লাল দত্ত : এই পৃথিবীতে (১৯৬০), অন্ধগলি (১৯৬০), এরা কারা (১৯৬৮), সম্রাট শাহ্জাহান (১৯৬৯), সবাই রাজা (১৯৬৯), সম্রাজ্ঞী নূরজাহান (১৯৬৯)
মিয়া আবদুল গণি : রক্ত যখন দিয়েছি
মিয়াজান আলী : পাক-শিক্ষায় ঘূর্ণিপাক (১৯৬২), পাক-ভ্রমণে বিপাক (১৯৬৩), বিশ্বরূপ (১৯৬৬)
মীর শামসুল ইসলাম : জাহাজের ইঞ্জিন বিকল (১৯৮৭), আর কদিন ইস্টিশনে (১৯৮৮), আদালতে প্রেমের গল্প (১৯৮৯)
মুনীর চৌধুরী : রক্তাক্ত প্রান্তর (১৯৬১), চিঠি (১৯৬৬), কবর, দ-কারণ্য, পলাশী ব্যারাক ও অন্যান্য, “মানুষ” (রচনা ১৯৪৭, প্রথম প্রকাশ ১৯৫০), “কবর” (রচনা ১৯৫৩, ১৯৬৬, বাংলাদেশ প্র. অ. ১৯৭২), “দ-কারণ্য” (১৯৬৬), কবিতা মজলিশ (১৯৪৩), সংঘাত (১৯৪৩), গু-া (১৯৪৪), একটি মশা (১৯৮২), নেতা (১৯৮২), ঢাক (১৯৮২), গতকাল ঈদ ছিল (১৯৮২), একাঙ্কিকা (১৯৪৫), রাজার জন্মদিন (১৯৪৬), বেশরিয়তি (১৯৪৭), পলাশী ব্যারাক (১৯৪৮), ফিটকলাম (১৯৪৮), আপনি কে (রচনা (১৯৪৮, প্রথম প্রকাশ ১৯৫৫), নষ্ট ছেলে (১৯৫০), মিলিটারী (১৯৫০), দ- (১৯৬৬), দ-ধর (১৯৬৬), একতলা দোতলা (১৯৬৫), কুপোকাৎ (১৯৬৬), মর্মান্তিক (১৯৬৭), বংশধর (১৯৬৭), রূপান্তরিত নাটক : কেউ কিছু বলতে পারে না (১৯৬৭), রূপার কৌটা (১৯৬৯), জনক (১৯৭০), স্বামী সাহেবের অনশনব্রত (১৯৪৬), জমা খরচ ও ইজা (১৯৬৮), মহারাজ (১৯৬৮), গুর্গন খাঁর হীরা (১৯৬৮), ললাট লিখন (১৯৬৯), মুখরা রমণী বশীকরণ (১৯৭০), অনূদিত রূপান্তরিত অসমান্ত নাটক : শেকসপীয়রের ওথেলো, টেনেসী উইলিয়ামস-এর এ স্ট্রীটকার নেম্ড্ ডিজায়ার অবলম্বনে গাজীর নাম বাসনাপুর, রোমিও-জুলিয়েট, শেকস্পীয়রের মাচ এ্যাডু এ্যাবাউট নার্থিং-এর অনুবাদ অকারণ ডামাডোল, জর্জ বার্নার্ড শ’র ম্যান এ্যন্ড সুপারম্যান, ইউজীন ও’নীল মর্নিং বিক্াস্ ইলেকট্রার অনুবাদ ইকেট্রার জন্য শোক, শেরিডানের দি স্কুল ফল স্ক্যান্ডাল।
মৃত্তিকা চাকমা : দেবংসি আহ্ধর কালা ছাবা (১৯৮৯), গোঝেন (১৯৯০), মহেন্দ্রের বনভাঝ (১৯৯১), এক জুর মানেক (১৯৯২), জোঘ্য (১৯৯৪), হক্কানীর ধনপানা (১৯৯৯), এগাত্তুরের তরনী (২০০১), ভূদ (২০০২), চিত্রনদীর পারে (২০০৫)
মোকাররম হোসেন টুলা : ঝিনেদা থেকে বলছি (২০০৪), পাওয়া হয় নাই পথ ভুলিয়া (২০০৫)
পথনাটক :পিয়ার ঘাটের বাঁশী (১৯৯৭), বয়াতীল বিলাপ (১৯৯৮), মিলন হবে কতোদিনে (২০০১)
মোনাজাতউদ্দিন : ননপলিটিক্যাল (১৯৭৯), বাক্স এক (১৯৭৯), বাক্স দুই (১৯৭৯)
মোহাম্মদ আবুল হাশেম : গরীবের ক্ষেত (১৯৫১)
মোহাম্মদ আমিন : বাতাসে লাশের গন্ধ (১৯৯২), জেগে ওঠে জলেশ্বরী (১৯৯৬), জলশিকারী, প্রেক্ষাপট গণতন্ত্র (১৯৯১), গোলমালের জম গোলমালের আযম (১৯৯২)
মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন : বিষাদ-সিন্ধু (২০০৭), বিষাদরূপ সিন্ধু (২০০৭), ৭১’এর গল্পগাথা (১৯৯৭), আর কতোদিন (১৯৯৮), ঘুনপোকা (১৯৯৯), মান্যবর ভুল করেছেন (২০০১), উল্টোরথের যাত্রী (২০০৩)
মোহিত চট্টোপাধ্যায় : মৃত্যুসংবাদ (১৯৭৫)
মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী : রাজাকারের দেশে (১৯৯০), এখনও সময় আছে (১৯৯২)
মোঃ আলাউদ্দিন : রক্তগোলাপ (১৯৬৮), নকল মানুষ (১৯৬৮), বোবা কান্না (১৯৬৬), আপট্রেন (১৯৬৬), একটি তিলের জন্য (১৯৭৯), চরিত্রের সন্ধানে নাট্যকার (১৯৭৯), পৃথিবী ঘোরে (১৯৭৯), কাচমহল (১৯৭৭), চিতাপ্রান্তর (১৯৯৬), রক্ত দিয়ে আনলাম (১৯৭২)।
মোঃ জালাল উদ্দিন : গাঁয়ের বুকে (১৯৬৪), দুই ভাই (১৯৬৫), ডাকাত (১৯৬৭), অনেক আঁধার (১৯৬৭), ভিখারীর ছেলে (১৯৬৭), ভিখারীর মেয়ে (১৯৬৭), কুসুম তারা (১৯৬৭), রাজ্যহারা (১৯৬৮), প্রীতি চন্দন (১৯৬৮), মালীর ছেলে (১৯৬৮), রাজরক্ত (১৯৬৮), রক্তে রাঙা বাংলাদেশ (১৯৭২), কিছু খেতে দাও (১৯৭৫), রঙ্গিলা একটি মেয়ের নাম (১৯৯৬), মাঝির মেয়ে (১৯৯৬)
মোঃ মতিউর রহমান : রাজসিংহাসন (১৩৮২), গরীবের আর্তনাদ (১৩৮৫), যৌতুক হলো অভিশাপ (১৩৮৮), মানুষ অমানুষ (১৩৮৯), ঘুমন্ত সমাজ (১৩৯৩), শাহী ফরমান (১৯৯৬), মধুমালতী রূপকুমার (১৯৯৭)
মোঃ মহসিন : একখ- জমি (১৯৮৫), গেদু মিয়ার বস্তি (১৯৮৫)
রতনকুমার ঘোষ : ভূমিকম্পের আগে (১৯৭৭), ভূমিকম্পের পরে (১৯৭৭), ভোরের মিছিল (১৯৭৭), সমুদ্র সন্ধানে (১৯৭৮), অমৃতস্য পুত্রা (১৯৮৪), দোহাই হাসবেন না (১৯৭৯), শেষ বিচার (১৯৭৪), রাজার বাড়ী কতদূর (১৯৭৪), পিতামহের উদ্দেশে (১৯৭৫), আলোকিত যৌবন (১৯৭৬), রাজঅভিষেক (১৯৭৬)
রণেশ দাশগুপ্ত : ফেরী আসছে (১৯৭২)
রফিকুল ইসলাম : একটি পতাকা (১৯৮৮), শকুনের দৃষ্টি (১৯৯০), আবার কেন রক্ত ঝরে (১৯৯২), রক্তাক্ত বর্ণমালা (১৯৮৯)
পথনাটক: শিউলী (১৯৯৯), বাঁচতে চাই (২০০১)
রবিউল আলম : জননীর মৃত্যু চাই (১৯৭৪), অথচ অন্ধকার (১৯৭৫), সমাপ্তি অন্যরকম (১৯৭৫), আকাক্সিক্ষত একজন (১৯৭৬), কখনো সৈকতে (১৯৭৮), শাড়ী বাড়ী গাড়ী (১৯৭৭), এক যে ছিল দুই হুজুর (১৯৭৭), অ্যাজ ইউ লাইক ইট (১৯৯২), রাজা সাহিত্য কারখানা (১৯৯৬)
রবিউল হাসান : জননীর মৃত্যু চাই
রশীদ হায়দার : তৈল সংকট (১৯৭৪)
রাজীব হুমায়ুন : নীলপানিয়া (১৯৯২)
রাজিয়া খান : আবর্ত (১৯৫৫), তিনটি একাঙ্কিকা (১৯৮৬)
কে. এম. শমসের আলী : সোনার কলম (১৯৫৫)
রাজিয়া মহ্বুব : সাগর কন্যা (১৯৬০)
রানা নাসের : জীবন ঘষে আগুন (১৯৮৩), একটি নবজাতক শিশু এবং কিন্তু (১৯৮৫), এ লাশ রাখবো কোথায় (১৯৮৩), আসমানী (১৯৮৬), পাঁচ শয়তানের ব্লাড প্রেসার (১৯৮৮)
রামেন্দু মজুমদার : ক্রীতদাসের হাসি
রাহুল আনন্দ : বিষ পাঁচালী, নো ম্যান ল্যান্ড, মান্দার
রেজা চৌধুরী : চক্রজাল
রেজানুর রহমান : চূড়ান্ত ষোষণা (১৯৮৩), মিছিল (১৯৮৩), হ-য-ব-র-ল (১৯৮৭), কুকুর হইতে সাবধান (১৯৯০), আনন্দ ঢেলা (১৯৮৯), বিবৃতি (১৯৮৯), উৎসব (১৯৯০), রাহু (১৯৯০), রং তামাশার খেলা (১৯৯০), এক্কাদোক্কা (১৯৯১), তাহাদের কথা (১৯৯৪), নিঃশব্দ নিয়তি (১৯৯৬), হাট্টিমাটিমটিম (২০০২)
লায়লা সামাদ : বিচিত্রা (১৯৬০), মন্তব্য নি®প্রয়োজন (১৯৭৫), লাল লণ্ঠন
লিয়াকত আলী লাকী : সোনাই মাধব (১৯৯৩), রঙ্গিণী, ববি (১৯৯৬), বাংলার মুখ (২০০৪)
পথনাটক: রয়ের বেঙ্গল টাইগার (১৯৮৪), নির্মূল (১৯৯৩), নির্মাণ (১৯৯৮), মহাপ্রয়া (১৯৯৬)
শওকত ওসমান : মলিয়ের পাঁচটি নাটক (১৯৬৫), কাঁকরমণি (১৯৪৯), তস্কর ও লস্কর (১৯৪৫), আমলার মামলা (১৯৪৯), বাগদাদের কবি (১৯৫২), ক্রীতদাসের হাসি (১৯৬৮), ডাক্তার আবদুল্লার কারখানা (১৯৭৩), তিনটি ছোট নাটক (১৯৮৯), পূর্ণ স্বাধীনতা চূর্ণ স্বাধীনতা (১৯৯০)
শহিদুল হক খান শ্যানন : ঘুণ (১৯৯৮), বাইদ্যানীর গান (১৯৯৮), লাল নীল কাব্য (২০০২), সে এক রাজ্য (২০০২), নরক
পথনাটক : সেই দিনগুলি (১৯৯৮), পুকুর চুরি (২০০১), ঘাস (২০০২)
শান্তনু কায়সার : তিতাস একটি নদীর নাম (১৯৯৪)
শান্তিময় চাকমা : যে দিনত যে কাল (১৯৮৪), ঝিঝু রামর স্বর্গত যানা (১৯৮৫), আন্ধারত জুনি পহ্র (১৯৮৪), ঝরা পাদার জীংকানী (১৯৯৪)
শাহ আলম বাবলু : পাতালে হাসপাতালে (১৯৮৬), ফ্যাসাদের দিনকাল (১৯৮৮), হায়রে কোষ্টা (১৯৮৬), গাঁজা আমার রাজা (১৯৮৮)
পথনাটক: কালের সাক্ষী (১৯৮৮), আমরা সবাই (১৯৮৮)
শিশির রহমান : পদ্মাপাড়ের কথকতা, নিলামের বাজার, হাসির বিয়ে, কুয়াশামুক্ত স্বপ্ন, পঞ্চভূতের রং তামাশা, গোয়েন্দার বার বছর (১৯৯২), রাজা ও শ্রমিক (১৯৯৩), কথাডা কি হাছানি (১৯৯৩)
শাহজাহান প্রামাণিক : অরণ্যে কি, রানার রং সাইডে, ময়না এখন মুক্ত, আমি যদি রাজা হতাম, লম্পট রাজার ভ- হুজুর, রক্তসূর্য, একটি ফুলের জন্য
গীতিনাট্য : রক্ত লাল, হাজার কোকন জাগবে, আমার বাংলা, ক্ষেমজুরের দূর্গ
শাহাদাৎ হোসেন : শা-জাহান-আলমগীর সংবাদ (১৯৪১), জাহাঙ্গীরের আত্মসমর্পণ (১৯৪২)
শুভাশিস সিনহা : মেঘ বৃষ্টি রোদ (১৯৯৬), আজবপুরের বর্ষবরণ (১৯৯৭), নারাগ ডাঙর ইলি (মণিপুরী ভাষায়) (১৯৯৭), নাই রাজার রাজদরবার (১৯৯৭), কানাইলালের সানাই (২০০০), প্রতিরূপকথা (২০০৭)
শেখ আকরাম আলী : মাদারীর খেলা (১৯৯১), এখনো যুদ্ধ (১৯৯৩), লাশ ’৭৪ (১৯৯৩), সূর্যোদয়ের আগে (১৯৯৩), শকুন (১৯৯৭)
শেখ নজরুল ইসলাম : নির্বাসিত সত্য (১৯৮১), একালের তীতুমীর (১৯৮৫), দর্পণ (১৯৮৫), আলো থেকে অন্ধকার (১৯৮১), এই দেশে (১৯৯২)
শেখ শামসুল হক : চাষীর ভাগ্য, দাওয়াল (১৯৬০), বরণ-ডালা (১৯৬৮)
শেখ হাবীবুল্লাহ : রক্তের বিনিময়ে, বীর বাঙালি, মুজিবের বাংলা, রক্ত সূর্য, জল্লাদের কারসাজি
শোভনময় ভট্টাচার্য : চিক্কুর (১৯৯৫), শিকল (১৯৯৭), গ্রহণ (১৯৯৯), সূর্যসেন (২০০৭, ২০০২ প্র. অ.), গন্তব্য (২০০২), পথনাটক: একাত্তরের তেলেসমাতি (১৯৯৫), এপিঠ-ওপিঠ (১৯৯৯), ২১’র ইতিবৃত্ত (২০০০), দালাল (২০০০), দানব (২০০৩)
শ্যামল ভাদুড়ী : তথাপি সূর্য আসে, ধস
পথনাটক :রক্তবীজের বংশধর
শংকর সাওজাল : মহারাজার অনুপ্রবেশ, টিয়া পাখির সমাচার, সার্কাস, জাগে লক্ষ নূর হোসেন, নির্বাসন
সদরুল পাশা : ম্যাসাকার
সনজীব বড়ুয়া : বাজলো রাজার বারোটা (১৯৭৯), মহারাজ অসুস্থ (১৯৯১), পাথর প্রতীমা (১৯৯৩)
সরফরাজ খাঁ : আনারকলি (১৯৪৫), নবাব আলীবর্দী
সাইমন জাকারিয়া : কবি, এ নিউ টেস্টামেন্ট অফ রোমিও, বিনোদিনী
সাইফুর রহমান মিরন : পথনাটক: এখানে এখনো (১৯৯২), গণরায় (১৯৯২), লক্ষ প্রাণের মূল্যে (১৯৯৩), যুদ্ধবাজ (১৯৯৪)
সাঈদ আহমদ : কালবেলা (১৯৭৬,), লোককাহিনি-ভিত্তিক রূপক নাটক তৃষ্ণায় (১৯৬৯); দুর্ভিক্ষের পটভূমিতে রচিত মাইল-পোস্ট (১৯৭৬), প্রতিদিন একদিন (১৯৭৮), Three plays of Sayeed Ahmed (1979), শেষ নবাব (১৯৮৯)
সাঈদ তারেক : সিন্দাবাদের ভূত
সাজেদুল আউয়াল : ফণীমনসা (১৯৭৯, ১৯৮০ প্র. অ.)
সাদেক বাচ্চু : কতদিন এই দিন (১৯৯১), কতিপয়ের বৃত্তান্ত (১৯৯২), কুলাঙ্গার (১৯৯৫)
সাবিনা বারী লাকী : জেনেশুনে বিষ করেছি পান (১৯৯৯), আমাদের পৃথিবী (২০০২)
সামসুজ্জোহা বাবলু : বাংলার সন্তান (১৯৭৩), নাটক কিন্তু নাটক নয় (১৯৭৭), বিলাতী (১৯৮৬), আজব দেশের আজব রাজা (১৯৮৬), নবাব আলী নবাবী (১৯৮৬), দেবী (২০০০)
সায্যাদ কাদির : সাড়ে সাতশো সিংহ (১৯৭৬), অপচয়ের যন্ত্রপাতি
সারোয়ার চৌধুরী : কাকতাররুয়ার পালা (১৯৯৮), এখনো মীরজাফর (১৯৯৮)
সালাম সাকলাইন : কালো ভেড়া বধ কর (১৯৮৯)
পথনাটক: বানরের পিঠা বণ্টন (১৯৮৬), মৃত্যুঞ্জয় মানুষেরা (১৯৯১), জাহেন আলীরে ধর (১৯৮৪), কথাকীত্তন (১৯৯২), শিবানী সুন্দরী (২০০১), হামেদ আলীর স্বর্গদর্শন (১৯৯২)
সালাহউদ্দীন আহমদ মিল্টন : সপাহীবীর মঙ্গল পা-ে (২০০১), জলতরঙ্গ (২০০১), নষ্ট প্রহর শেষে (২০০২), উদরে উঁই পোকা (২০০২), মানুষ (২০০৩)
পথনাটক: রক্তাক্ত সংগ্রাম (১৯৯৭), তৈল মর্দন (২০০১), একজন মুক্তিযোদ্ধা (২০০২), নো তাফালিং (২০০৩)
সিকান্দার আবু জাফর : সিরাজ-উ-দ্দৌলা (১৯৬৫), মহাকবি আলাউল (১৯৬৬), শকুন্ত উপাখ্যান (১৯৬১) ও মাকড়সা (১৯৫৯), সিংগের নাটক (১৯৭১)
সিরাজ হায়দার : আলো একটু আলো (১৯৭৬), বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা করে নিন (১৯৭৬), পাগলা কুকুর (১৯৭৭)
সিরাজুল ইসলাম : ট্যাবলেট ক্যাপসুল ও ফাইল (১৯৭২), সুতরাং পরে হবে (১৯৭৩), জলসড়ক (১৯৭৬), যুগল সমাধি (১৯৭৮), স্পেশাল ট্রেন (১৯৮০)
পথনাটক: রাক্ষস (১৯৭৯), ভেলকিবাজী (১৯৯৪), এদের ধরিয়ে দিন (১৯৮৯), সময়ের সাহসী (১৯৯০), ফান্দিছে ১ম ও ২য় পর্ব (১৯৯১ ও ১৯৯২), মায়ের ডাক (১৯৯৫)
সুচরিত চৌধুরী : হাসির রাজা গোপাল ভাঁড় (১৯৯৩), জন্মভূমি (১৯৯৭), হাইজ টু নো লেট (১৯৯৯), মহাকাল (২০০২), আবার নন্দিনী (২০০৪), ভূত (২০০৫), ভবিষ্যৎ (২০০৫), একটি অমীমাংসিত রহস্য (২০০৫)
পথনাটক: জুঁইখালীর সংগ্রাম (১৯৯৪), মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন (১৯৯৫), বীরকন্যা (১৯৯৬), বিজয়ী বাঙ্গালী (১৯৯৮), মৃত্যুবীজ (১৯৯৯), চেৎ তো গং (২০০১), নেই মানুষের দেশে (২০০৩)
সুনন্দ বাশার : নীল ময়ূরের যৌবন (২০০৭)
সুনীল কুমার : একই প্যাচাল (১৯৯৫), আশ্রয় (১৯৯৬), অমাবশ্যায় চন্দ্রমুখ (১৯৯৮), কেষ্টা পথনাটক: যদি এমন হয় (১৯৯৪), নগরভবনের নাগর (১৯৯৭), ফাগুনের চোখে জল (১৯৯৮)
সুভাস দাস : আমার নাম সুলতান (১৯৮২), মুক্তিযোদ্ধা সুলতান (১৯৮২), আমি মেহেদী বলছি (১৯৮৪), নবাব (১৯৮৬), চেরাগ আলীর কিচ্ছা (১৯৮২)
পথনাটক :নসু মিয়ার প্যাচাল (১৯৮২), পলাশীর সুবোধ শয়তান (১৯৮৬)
সেলিম আল দীন : অনিকেত অন্বেষণ (১৯৭০), নীল শয়তান : তাহিতি ইত্যাদি (১৯৭২), সর্প বিষয়ক গল্প (প্রথম প্রযোজনা: ১৯৭২), জ-িস ও বিবিধ বেলুন (রচনা ও প্রযোজনা: ১৯৭২), এক্সপোসিভ ও মূল সমস্যা (১৯৭৩), করিম বাওয়ালীর শত্ররু অথবা মূল মুখ দেখা (১৯৭৩), সংবাদ কার্টুন (১৯৭৩), সম্রাট ও প্রতিদ্বন্দ্বীগণ (১৯৭৩), মুনতাসীর ফ্যান্টাসী, পরে শুধু মুনতাসীর (১৯৭৪-৭৫, ১৯৭৫ প্র. অ.), পথনাটক চরকাঁকড়ার ডকুমেন্টারী (১৯৭৭), শকুন্তলা (১৯৭৭) এবং আতর আলীদের নীলাভ পট (১৯৭৫), কিত্তনখোলা (১৯৮০, ১৯৮১ প্র. অ.), কেরামতমঙ্গল (১৯৮৫), হাত হদাই (১৯৮৯), চাকা (১৯৯০, ১৯৯১ প্র. অ.), হরগজ (১৯৯২), যৈবতী কন্যার মন (১৯৯৩), বনপাংশুল (১৯৯৮) ও প্রাচ্য (২০০০), সংবাদ কার্টুন, নিমজ্জন (২০০৪), স্বর্ণবোয়াল (২০০৭), ধাবমান ও পুত্র (২০০৭)
সৈকত খন্দকার খোকন : ঘুমপাড়ানীর কড়ি (১৯৯১), শ্যাডো (২০০২)
পথনাটক: মগজ ধোলাই (১৯৮৭)
সৈয়দ আবদুল হাই : ছারপোকা
সৈয়দ আলী আহসান : মুশতরী (১৩৫০), কোরবানী (১৩৫০), জোহর, ইডিপাস (১৯৫২)
সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ : বহিপীর (১৯৬০), তরঙ্গভঙ্গ (১৯৬২), সুড়ঙ্গ (১৯৫৫), উজানে মৃত্যু (১৯৬৩)
সৈয়দ মকসুদ আলী : ইউরেকা (১৯৫৯)
সৈয়দ মহিদুর রহমান : মোকরফ ফেরেস্তার দেশে, ৩৪’এর প্যারাসাইট, সাবধান ওরা আছে
পথনাটক: ইবলিশের দরবার, এখানে হায়েনার মুখ, সাপের খেইল, আমরা দিওয়ানা, লীলা, শকুন
সৈয়দ মুফাজ্জল সাদাত মুক্তা : অন্যতম জঘন্য (১৯৯৫), নিয়ামত আলীর সংসার (২০০১)
পথনাটক: পিচ্ছিল রাস্তা (১৯৯৭)
গীতিনাট্য: রেললাইন বহে সমান্তরাল (১৯৯৯)
সৈয়দ শামসুল হক : পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায় (১৯৭৬), নূরলদীনের সারাজীবন (১৯৮২), গণনায়ক (১৯৭৬), এখানে এখন (১৯৮৮,), ঈর্ষা (১৯৯১), বাংলার মাটি বাংলার জল, খাট্টা তামাশা (১৯৯৫ প্র. অ.), আমাদের জন্ম হলো (১৯৯১ প্র. অ.), তোরা সব জয়ধ্বনি কর, যুদ্ধ এবং যুদ্ধ (১৯৮৭, ১৯৮৬ প্র. অ.), মুখোশ (১৯৯৩ প্র. অ.), কৃষ্ণপক্ষ, ম্যাকবেথ (১৯৮৩ প্র. অ.)
সৈয়দ সালাউদ্দিন জাকি : অস্থির সুস্থিতি
সোলায়মান মজিদ : মন্ত্রী কদম আলী (১৯৮৪), কৃষ্ণছবি নরকে (১৯৮৪), বাদীপক্ষ সরকার (১৯৮৬), একুশের গপ্পো (১৯৯০), নির্বাসিত সুন্দরী (১৯৮৫), পাগলাসুমারী (১৯৯৮), কংসে প্রেম ধবংশ (১৯৯৪), দেশ ও সখীমন (১৯৯৮)
হাবিব আহ্সান কোহিনুর : পলাতক পালিয়ে গেছে, তরুণ ও বহমান ক্ষত, সাক্ষাৎকার, ব্যক্তিগত পৃথিবী
হাবিবুর রহমান : মায়াকানন (১৯৭৬), আলোর ফুল (১৯৭৬)
হাবিবুর রহমান হাবিব : গরল (১৯৯৩), ব্যামো (১৯৯৩)
হাবিবুল হাসান : সম্রাট ও প্রতিদ্বন্দ্বিগণ (১৯৭৩), কৃষ্ণচূড়ার লাল কিম্বা রজনীগন্ধার সাদা, আরেকটা শহর চাই, কসাই (১৯৭৭)
হাবীবুর রহমান : বিড়ম্বনা (১৯৭০), কালের পুতুল (১৯৭০)
হারুনূর রশিদ : একদিন এক রাত (১৯৬১), বিফল স্বপ্ন (১৯৬৫)
হুমায়ূন আহমেদ : স্বপ্ন, অসময়, ১৯৭১, নৃপতি, মহাপুরুষ (১৯৮৬ প্র. অ.) কিশোর নাটিকা স্মৃতিচিহ্ন
হেমচন্দ্র ভট্টাচার্য : একুশের নাম বাংলাদেশ (১৯৭৭), জনতার আদালত (১৯৭৭)


দয়া করে পোস্টটি শেয়ার করুন...

© BengaliGrammar.Com
Maintenance by BengaliGrammar.Com