July 17, 2019, 4:33 am

হুমায়ুন আজাদ

প্র : হুমায়ুন আজাদ কবে, কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?
উ : ১৯৪৭ সালের ২৮শে এপ্রিল, বিক্রমপুরের বাড়িখাল নামক এলাকায়।
প্র : তিনি মূলত কী হিসেবে পরিচিত?
উ : লেখক ও অধ্যাপক।
প্র : তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থগুলোর নাম কী?
উ : কবিতা : অলৌকিক ইস্টিমার (১৯৭৩), জ্বলো চিতাবাঘ (১৯৮০), সব কিছু নষ্টদের অধিকারে যাবে (১৯৮৫), যতোই গভীরে যাই মধু যতোই ওপরে যাই নীল (১৯৮৭), কাফনে মোড়া অশ্রুবিন্দু (১৯৯৮)। উপন্যাস : ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল (১৯৯৪), সব কিছু ভেঙে পড়ে (১৯৯৫), শুভব্রত তার সম্পর্কিত সুসমাচার (১৯৯৮), রাজনীতিবিদগণ (১৯৯৮), কবি অথবা দ-িত পুরষ (২০০০), পাক সার জমিন সাদ বাদ (২০০৩) ইত্যাদি। সমালোচনা/প্রবন্ধ: রবীন্দ্রপ্রবন্ধ, রাষ্ট্র ও সমাজচিন্তা (১৯৭৩), শামসুর রাহমান : নিঃসঙ্গ শেরপা (১৯৮৩), শিল্পকলার বিমানবিকীকরণ ও অন্যান্য প্রবন্ধ (১৯৮৮), নারী (১৯৯২), দ্বিতীয় লিঙ্গ (১৯৯৯)। ভাষাতত্ত্ব : বাক্যতত্ত্ব (১৯৮৪), তুলনামূলক ও ঐতিহাসিক ভাষা বিজ্ঞান (১৯৮৮)।
প্র : ‘অলৌকিক ইস্টিমার’ কাব্রগ্রন্থের পরিচয় দাও।
উ : হুমায়ুন আজাদের প্রথম কাব্যগ্রন্থ (১৯৭৩)। কবিতায় যৌনতার অনুষঙ্গ আছে, কিছু স্লোগানও আছে। তবে কাব্যভাষা ঋদ্ধ, লক্ষ্যভেদী। øানের জন্যে, জল দাও বাতাস, জ্যোৎøার অত্যাচার, আত্মহত্যার অস্ত্রাবলি ইত্যাদি এর কয়েকটি গরুত্বপূর্ণ কবিতা।
প্র : ‘আমি বেঁচেছিলাম অন্যদের সময়ে’ কাব্যগ্রন্থের পরচয় দাও।
উ : ১৯৯০ সালে প্রকাশিত হয় হুমায়ুন আজাদের ‘আমি বেঁচেছিলাম অন্যদের সময়ে’। এটি তাঁর পঞ্চম কাব্যগ্রন্থ। কাব্যগ্রন্থটির উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কবিতা হরো : কথা দিয়েছিলাম তোমাকে, তরুণী সন্তু, যে তুমি ফোটাও ফুল, যদি একবার তাকাও, পর্বত, শিশু ও যুবতী ইত্যাদি। এই কাব্যগ্রন্থে হুমায়ুন আজাদ মানুষের অমরত্বে সন্ধান করেছেন। আপাতত বিঘœ এলেও মানুষ যে শেষ অবধি অপরাজেয় থেকে যায়, এ কাব্যগ্রন্থের মূল সুর এটাই।
প্র : ‘আব্বুকে মনে পড়ে’ গ্রন্থের পরিচয় দাও।
উ : হুমায়ুন আজাদের ‘আব্বুকে মনে পড়ে’ মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক কিশোর উপন্যাস। প্রকাশিত হয় ১৯৮৯ সাল্ েউপন্যাসটির কেন্দ্রীয় চরিত্র এক শিশু। ১৯৭১ সালে যাব বয়স ছিল চার বছর। যার মনে বার বার ভেসে উঠে যুদ্ধ করতে যাওয়া তার বাবার স্মৃতি।
প্র : তিনি কেমন লেখক হিসেবে পরিচিত?
উ : প্রথাবিরোধী, ধর্মীয় মৌলবাদীদের মুখোশ উন্মোচনকারী, লৈঙ্গিক বৈষম্যে বিশ্বাসহীন লেখক।
প্র : তিনি কী পুরস্কার লাভ করেন?
উ : বাংলা একাডেমী পুরস্কার (১৯৮৬)।
প্র : হুমায়ুন আজাদ রক্তাক্ত হয়েছিরেন কীভাবে?
উ : ২০০৪ সারের বাংলা একাডেমী বইমেলা থেকে বাসায় ফেরার পথে ২৭শে ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে মৌলবাদী গোষ্ঠী তাঁকে চাপাতির আঘাতে ক্ষ-বিক্ষত করে। এরপর দেশ-বিদেশে দীর্ঘ চারমাস তাঁকে চিকিৎসা নিতে হয়।
প্র : তিনি কবে, কোথায় মারা যান?
উ : জার্মানির মিউনিখ শহরে, ২০০৪ সালের ১২ই অগস্ট তিনি মৃত্যুবরণ করেন।


দয়া করে পোস্টটি শেয়ার করুন...

© BengaliGrammar.Com
Maintenance by BengaliGrammar.Com